গভীর রাতে সুরভী ৭ এর ধাক্কায় কার্গো নিমজ্জিত

গতকাল বুধবার রাত নয়টার দিকে সুরভী-৭ নামের একটি লঞ্চ ঢাকা থেকে বরিশালের উদ্দেশে রওনা দেয়। রাত ১১টার দিকে লঞ্চটি ধলেশ্বরী পার হওয়ার সময় হঠাৎ একটি ধাক্কা খেলে বিকট শব্দ হয়। এ সময় যাত্রীদের মধ্যে অনেকে খাওয়াদাওয়া করছিলেন। আবার অনেকেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। এ সময় আকস্মিক বিকট শব্দ শুনে সবাই আতঙ্কিত হয়ে ছোটাছুটি শুরু করেন। পরে যাত্রীরা জানতে পারেন লঞ্চের সঙ্গে একটি বালুবোঝাই বাল্কহেডের সংঘর্ষ হয়েছে।

ওই লঞ্চের যাত্রী আরিফ হোসেন এভাবেই গতকাল রাতের ওই দুর্ঘটনার বর্ণনা দিলেন। গতকাল রাত ১১টার দিকে মুন্সিগঞ্জের কাছে ধলেশ্বরী নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। লঞ্চের সঙ্গে বালুবোঝাই বাল্কহেডের সংঘর্ষের পর ওই বাল্কহেডটি ডুবে যায়। আর লঞ্চটির সামনের অংশ ফেটে যাওয়ায় অল্পের জন্য লঞ্চের যাত্রীরা রক্ষা পান। পরে ওই লঞ্চের যাত্রা বাতিল করা হলে এমভি কীর্তনখোলা-১০ নামের একটি লঞ্চ ঘটনাস্থলে আসে। কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চটি আজ বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে বরিশালে পৌঁছেছে।

মুন্সিগঞ্জের কলাগাছিয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) মো. ইলিয়াস প্রথম আলোকে বলেন, মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী ও মেঘনা নদীর মোহনার অদূরে চর কিশোরগঞ্জ এলাকায় ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে। এ দুর্ঘটনায় বালুবাহী বাল্কহেডটি ডুবে গেছে। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

সুরভী-৭ লঞ্চের পরিদর্শক মো. সোহেল প্রথম আলোকে বলেন, রাতে ঘন কুয়াশার কারণে সামনের কোনো কিছুই দেখা যাচ্ছিল না। আবার বাল্কহেডটিতেও কোনো আলো ছিল না। তাই লঞ্চের সার্চ লাইট কুয়াশা ভেদ করে বাল্কহেডটিকে দেখতে না পাওয়ায় বাল্কহেডটি সোজা লঞ্চের ওপর আছড়ে পড়ে। এতে লঞ্চের সামনের অংশ কিছুটা ফেটে যায়।

লঞ্চের আরেক যাত্রী মোসাদ্দেক হাসিব বলেন, মানামী, সুরভী ও পারাবাত—এই তিন লঞ্চ নদীতে প্রতিযোগিতা করে চালাচ্ছিল। বাল্কহেডে আলো না থাকার জন্যই দুর্ঘটনা ঘটেছে, তবে এমনভাবে নদীতে প্রতিযোগিতা করে লঞ্চ চালানো উচিত নয়। প্রতিযোগিতার কারণেই এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

লঞ্চমালিক মো. রিয়াজ উল কবির প্রথম আলোকে বলেন, পানির উচ্চতা থেকে এক হাত ওপরে লঞ্চের সামনের অংশে সামান্য ছিদ্র হয়েছে। লঞ্চটি নদীর তীরে নোঙর করে রাখা হয়েছে। লঞ্চের আর কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কি না, সেটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।জানতে চাইলে বিআইডব্লিউটিএর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের যুগ্ম পরিচালক ও বরিশাল নদী বন্দরের কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, সুরভী লঞ্চের যাত্রীরা পরে অন্য একটি লঞ্চে নিরাপদে বরিশাল বন্দরে পৌঁছে গেছেন। সুরভী লঞ্চটি দুর্ঘটনাস্থলে আছে। ঘটনাটি তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

ফেসবুকে লাইক দিন