জেলেনস্কির নো ফ্লাই জোনের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান যুক্তরাষ্ট্রের

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির দেশের আকাশকে নো ফ্লাই জোন হিসেবে ঘোষণার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছে হোয়াইট হাউস। এদিকে ইউক্রেনের শহরগুলোতে হামলার তীব্রতা ক্রমেই জোরদার করছে রুশ সেনারা। স্যাটেলাইট ইমেজে দেখা গেছে, ৪০ মাইল দীর্ঘ রুশ সামরিক বহর রাজধানী কিয়েভের দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

কিয়েভে বিমান হামলার সাইরেন এবং খেরসন শহরে শক্তিশালী বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে।

ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেছেন, সোমবার খারকিভ শহরে রুশ সেনার হামলায় অসংখ্য বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস জরুরি বৈঠকে আবারো যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছেন। রাশিয়ার সাথে যে কোন ধরনের ব্যাংকিং লেনদেনে দেয়া হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। এ সপ্তাহের মধ্যে ইউক্রেনকে ট্যাংক বিধ্বংসী অস্ত্র সরঞ্জাম পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এরই মধ্যে কানাডা রাশিয়ার সেন্ট্রাল ব্যাংকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ।

এদিকে কোনো সমাধান ছাড়াই শেষ হলো ইউক্রেন-রাশিয়ার ৫ ঘণ্টার মন্ত্রী পর্যায়ের প্রথম দফা বৈঠক। ইউক্রেনীয় সময় সোমবার দুপুর ১টায় বেলারুশ সীমান্তবর্তী গোমেল অঞ্চলে আলোচনায় অংশ নেন দুদেশের প্রতিনিধি। বৈঠকে আসেনি কোনো সমাধান। তবে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দুপক্ষই।

রাশিয়ার প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কয়েকদিনের মধ্যেই হবে দ্বিতীয় দফা বৈঠক। আর ইউক্রেন জানিয়েছে, রাজধানীতে ফিরে বৈঠকের বিষয়ে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

বৈঠকে ইউক্রেনের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেস্কি রেজনিকোভ ও উপ-পররাষ্ট্র মন্ত্রী মিকোলা তোচিৎস্কি। আর রাশিয়ার পক্ষ থেকে ছিলেন উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী আলেক্সান্ডার ফোমিন ও বেলারুশে রুশ রাষ্ট্রদূত বোরিস গ্রিজলোভ। তাদের নেতৃত্বে ছিলেন প্রেসিডেন্সিয়াল সহকারী ভ্লাদিমির মেদিনস্কি।

বৈঠকে রুশ সেনা প্রত্যাহার ও যুদ্ধবিরতি চায় ইউক্রেন। আলোচনার বিষয়বস্তু নিয়ে পরামর্শের জন্য নিজেদের রাজধানীতে ফিরে গেছেন দু’দেশের প্রতিনিধিরা।

ফেসবুকে লাইক দিন