আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ রবিবার, ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং, ১১ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

বোরহানউদ্দিনে মসজিদে আজান হলে বন্ধ হয়ে যায় দোকান

বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধিঃ একমাত্র নামাজের মাধ্যমেই মহান রবের কাছাকাছি আসা যায়। একমাত্র নামাজের মাধ্যমেই বান্দা তার প্রভুর সঙ্গে সরাসরি কথা বলার সুযোগ পায়। ইসলামের অন্যতম সৌন্দর্য হচ্ছে কোনো দালাল ছাড়াই সরাসরি আল্লাহর সঙ্গে বান্দা নামাজের মাধ্যমে সাক্ষাত্ করতে পারে এবং নিজের জন্য সাহায্য কামনা করতে পারে।
আর নামাজ আদায়ের উৎসাহ দেওয়ার লক্ষে ভোলার বোরহানউদ্দিন বাজারে মসজিদে আযানের পর দোকান বন্ধ রেখে সকল মুসলমান ব্যবসায়ী ও দোকান কর্মচারী জামাতের সহিত নামাজ আদায়ের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন।
বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি শাহিন ফকির,
স্থানীয় প্রশাসন, বাজার ব্যবসায়ী, আলেম সমাজ ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে গঠিত এমন উদ্যোগ গ্রহণে স্বাগত জানিয়েছেন সর্বস্তরের জন-সাধারণ।
স্থানীয়রা জানায়,গত শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ব্যবসায়ী, আলেম সমাজ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ আযানের পর বোরহানউদ্দিন বাজারের মুসলমান ব্যবসায়ীগন দোকান বন্ধ রেখে জামায়াতের সহিত নামাজ আদায় করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার বিষয়ে ভোলা বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহিন ফকির এর সহযোগিতা চায়। (ওসি) শাহীন ফকির স্থানীয় সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল এবং বোরহানউদ্দিন পৌরসভা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে আলোচনা করে নামাজের সময়ে দোকান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। তার এই সিদ্ধান্তের পর থেকে ব্যবসায়ীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে দোকান বন্ধ রেখে নামাজে শরিক হন। দোকানে আসা ক্রেতাগণও এখন নামাজে শরিক হয়।
তবে বাজারে হিন্দু ব্যবসায়ীদের দোকান বন্ধ রাখার ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়নি। বাজারে এখন নামাজের সময় দোকান খোলা রেখে গেলেও দোকানের কোন মালামাল চুরি কিংবা হারিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেনি। এমন উদ্যোগকে ধর্মপ্রাণ মুসলমানের পাশাপাশি হিন্দু ব্যবসায়ীরাও স্বাগত জানিয়েছেন।
এ বিষয়ে বোরহানউদ্দিন বাজারের সেলুন ব্যবসায়ী হিন্দু সম্প্রদায়ের যাদব চন্দ্র শীল জানান, মুসলমানদের নামাজের সময় দোকান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। আযানের পর আমাদের হিন্দুদের দোকান বন্ধ করার কোন ঘোষণা দেওয়া হয়নি।
নূর সুপার মার্কেটের ব্যবসায়ী নূর মোহাম্মদ জানান, ব্যবসায়ী, আলেম সমাজ, ও পৌরসভার কাউন্সিলরদের সমন্বয়ে যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে এটি সন্দে ভালো উদ্যোগ।
বোরহানউদ্দিন বাজারের ঔষধ ব্যবসায়ী ইকবাল হোসেন জানান, বোরহানউদ্দিন বাজারে আযান হলে এখন দোকান বন্ধ রেখেই সবাই নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদে চলে যাই। এই সিদ্ধান্তকে ব্যবসায়ী সকলে সাদরে গ্রহণ করেছে।
বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহীন ফকির জানান, আযানের পর নামাজের জন্য কিছু সময় দোকান বন্ধ রাখার বিষয়ে বোরহানউদ্দিন বাজারের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, পৌরসভা কাউন্সিলরগণ তার কাছে সহযোগিতা চাইতে আসেন। (ওসি) শাহীন ফকির স্থানীয় সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল ও পৌরসভা মেয়র রফিকুল ইসলাম ও বাজারের ব্যবসায়ী, হিন্দু নেতৃবৃন্দ ও আলেম সমাজের সাথে আলোচনার মাধ্যমে আযানের পর নামাজের জন্য দোকান বন্ধ রাখার এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।
বোরহানউদ্দিন বাজার ব্যবসায়ীসহ সকলের সমন্বয়ে এ ধরনের একটি সুন্দর উদ্যোগ গ্রহণ করতে পেরে আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন বোরহানউদ্দিন বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মিজানুর রহমান।

ফেসবুকে লাইক দিন