অবশেষে ভোলা জেলা ও দায়রা জজকে বিদায়ী সংবর্ধনা।

জাভেদ মাহামুদ ফিরোজঃ

ভোলার জেলা ও দায়রা জজ ড. এ. বি. এম মাহমুদুল হক কে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছে ভোলা জেলা আইনজীবী সমিতি। বৃহস্পতিবার ( ৯ সেপ্টেম্বর) সকালে জেলা আইনজীবী সমিতির দক্ষিণ ভবনে সম্মেলন কক্ষে ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বিদায়ী সংবর্ধিত অতিথিকে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন আইনজীবীরা।
জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট ফরিদুর রহমানে সভাপতিত্বে ও ইফতারুল হাসান শরিফের সঞ্চালনায় বিদায়ীসংবর্ধনায় বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ ওসমান গনি, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা জজ নুরুল আলম মোহাম্মদ নিপু, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাহ মোহাম্মদ সানাউল হক।

আইনজীবীদের পক্ষ থেকে রাখেন সিনিয়র এডভোকেট পিপি সৈয়দ আশরাফ হোসেন লাবু, ভোলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এ্যাডভোকেট সালাহ উদ্দিন হাওলাদার, এডভোকেট বশিরউল্লাহ, এডভোকেট মহিবুল্লাহ, এডভোকেট ফরমুজন হক বিশ্বাস, এডভোকেট জুলফিকার আহমেদ, জহুরুল ইসলাম খসবু, এডভোকেট রাধেশ্যাম দত্ত, এ্যাডভোকেট গোলাম মোর্শেদ কিরণ তালুকদার, ড,আমিরুল ইসলাম বাসেত, কামালউদ্দিন, ফিরোজ শা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সদ্য পদোন্নতি পাওয়া চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সানাউল হক ভোলায় সদ্য যোগদান কারী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ নুরুল আলম মোহাম্মদ নিপু,এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ওসমান গনি সাহেবকে আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া দিয়ে অভিনন্দন জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে যুগ্ন জেলা ও দায়রা জজ গলাম জাকারিয়া, ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের বিচারক যুগ্ন জজ মোহাম্মদ শামসুদ্দীন, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটবৃন্দ, সহকারি জজ বৃন্দ এবং ভোলা আইনজীবী সমিতির সিনিয়র জুনিয়র সদস্য গন উপস্থিত ছিলেন।

আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, ভোলার বিদায়ী জেলা দায়রা জজ ডাঃ এ বি এম মাহামুদুল হক সৎ ও ন্যয়পরায়ন বিচারক। তিনি ভোলায় যোগদানের পর থেকে সততা, দক্ষতা, ও ন্যয়পরায়নতার সাথে বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। তিনি বিচারে সুলভ মনোভাব প্রয়োগ, সঠিক ও ন্যয় বিচার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বিচারক আইনজীবী, আদালতের কর্মচারী ও জনগনের আস্তা অর্জন করেছেন। বক্তারা তার পরিবার ও ব্যক্তিগত জীবনের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিদায়ী জেলা ও দায়রা জজ ড,এবিএম মাহমুদুল হক বলেন আমি যেহেতু সরকারি চাকরি করি বদলি এটা একটি চলমান বিষয়। ভোলায় আমি চেষ্টা করেছি সাধারণ মানুষকে ন্যায় বিচার দিতে। ভোলার আইন অঙ্গনের পরিবেশকে উন্নত করার জন্য কাজ করেছি।

সকলের সহযোগিতায় কোর্ট চত্বর এলাকায় একটি সুন্দর দৃষ্টিনন্দন স্থানে পরিণত করতে পেরেছি। সাবেক পরিত্যক্ত মুন্সেফ কোয়াটার কে আধুনিকায়ন করা হয়েছে। আমার জ্ঞানত আমি কোন অন্যায়ের সাথে আপোষ করিনি। ভোলা জেলা আইনজীবী সমিতি কর্তৃক তাকে সংবর্ধনা দেওয়ায় ভোলার আইনজীবীদেরকে তিনি ধন্যবাদ জানান।

ফেসবুকে লাইক দিন