আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ মঙ্গলবার, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে মে, ২০২৪ ইং, ১২ই জিলক্বদ, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

ঝালকাঠিতে সামাজিক সংগঠন ইয়াস এর উদ্যোগে তাপপ্রবাহে তৃষ্ণার্তদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ

মোঃ মাছুম বিল্লাহ, কাঠালিয়া প্রতিনিধিঃ দেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তীব্র তাপপ্রবাহ। প্রদিতিনই ছাড়িয়ে যাচ্ছে তাপমাত্রার রেকর্ড। তীব্র তাপে জনজীবন বিপর্যস্ত। গরমের তীব্রতা বাড়ায় গত শনিবার থেকে সারাদেশে জারি করা হয় তিনদিনের হিট অ্যালার্ট। যা পরবর্তিতে আরো বৃদ্ধি করা হয়েছে।
জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়া নগরবাসী ও শ্রমজীবিদের তৃষ্ণা মেটাতে পানি ও স্যালাইন দিচ্ছে সামাজিক সংগঠন ইয়ুথ অ্যাকশন সোসাইটি-ইয়াস। এতে সহযোগিতা করে স্বাস্থ্য বিভাগ, ঝালকাঠি।
বুধবার ( ২৪ এপ্রিল ) সকাল থেকে ইয়াসের সদস্যরা ফায়ার মোড়ে এই সেবা প্রদান করে। এসময় উপস্থিত ছিলেন ডা. এইচ এম জহিরুল ইসলাম সিভিল সার্জন, ঝালকাঠি, ইয়াসের উপদেষ্টা ও নারীনেত্রী ইসরাত জাহান সোনালী, সমাজসেবক হাসান মাহমুদ।
এছাড়াও ইয়াসের সাধারণ সম্পাদক মাহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির হোসেন রানা, অর্থ সম্পাদক রাহাত মাহমুদ জীবন, সদস্য রনি চন্দ্র, সাকিব হাসান, রুবায়েত ইসলাম সহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
ড. জহিরুল ইসলাম তিনি বলেন, তীব্র তাপ প্রবাহের কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত। এরপরেও জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হচ্ছেন অনেকে। বিশেষ করে শ্রমজীবি মানুষ কাজের সন্ধানে বের হয়েছেন। তীব্র গরমে সড়কে বের হওয়া পথচারী, রিকশা চালক ও বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাওয়া যাত্রীদের তীব্র গরমের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি দিতে বিশুদ্ধ পানি ও স্যালাইন বিতরণ করছি। পাশাপাশি হিটস্ট্রোক থেকে বাঁচতে ও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় রাখতে জনসচেতনতা মূলক প্রচারভিযান চলছে। সকাল থেকে ফায়ার মোড় এলাকায় আমাদের এ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
ইয়াসের উপদেষ্টা ইসরাত জাহান সোনালী বলেন, তাপ প্রবাহের কারণে ঝালকাঠিবাসীরাও অনেক কষ্ট পাচ্ছে। তাই আমরা সাধারণ মানুষের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ করছি। সকাল থেকে অন্তত এক হাজার পথচারী, রিকশা চালক ও যাত্রীদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ করা হয়েছে। আমাদের এই সেবা শ্রমজীবি সকলের জন্য উন্মুক্ত। চলমান তাপ প্রবাহ যতদিন থাকবে আমাদের এই কার্যক্রম চলমান রাখার চেষ্টা অব্যহত থাকবে।
এসময় ইয়াসের সাংগঠনিক সম্পাদক জানান, আমরা প্রাথমিক পর্যায়ে তৃষ্ণার্তদের জন্য পানি ও স্যালাইনের ব্যবস্থা করেছি। এসময় সিভিল সার্জন মহোদয় জেনে আমাদের সহযোগিতা করেন। এছাড়াও উপদেষ্টা ও সদস্যরা সহযোগিতা করছেন। এরকম সহযোগিতা অব্যহত থাকলে আমরা স্বেচ্ছাসেবিরা প্রতিনিয়ত পানি ও স্যালাইন বিতরণ করতে পারবো। পাশাপাশি জনসাধারণের সচেতনতার জন্য প্রচারভিযান অব্যহত থাকবে।

ফেসবুকে লাইক দিন