আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ মঙ্গলবার, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে মে, ২০২৪ ইং, ১২ই জিলক্বদ, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

বামনায় সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের হাত মেহেদীর রঙে রাঙিয়ে দেয় ক্ষুদে উদ্যোক্তারা

মোঃ শাকিল আহমেদ, বামনা (বরগুনা) প্রতিনিধিঃ ন্যাশনাল চিলড্রেন’স টাস্ক ফোর্স(এনসিটিএফ)এর উদ্যোগে বুধবার (১০ এপ্রিল) বামনা উপজেলা বাজারের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের হাত মেহেদীর রঙে রাঙিয়ে দেওয়া হয়।
পবিত্র মাহে রমজান এখন শেষ এর পথে।রাত পোহালেই ঈদ। ঈদকে কেন্দ্র করে শিশুদের আগ্রহের শেষ নেই। অভিভাবকরাও সাধ্যমত চেষ্টা করেন শিশুদের সমস্ত বায়না মেটাতে। তবে বঞ্চিত থেকে যায় অসহায় পথশিশু ও সুবিধা বঞ্চিত শিশুরা। তাদের মন ঈদের কোনো রঙেই ঠিক মতো রাঙে না। এসব পথশিশুদের পাশে দাড়িয়েছেন একদল মানুষ। যা সকলকে মানোমুগ্ধ করে।
সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে মেহেদী রাঙা উৎসব অনুষ্টিত হয়। তার উদ্যোগে ছিল বামনা উপজেলা এনসিটিএফ এর সভাপতি ইনসানা রহমান তাজ্জি, সাধারণ সম্পাদক শাহ মুহাম্মদ শাফি উদ্দীন, সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম, শিশু সাংসদ মোসা: সাকিরা, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ওয়াফি সাদাতি খান বানী ও আলিফ, শিশু গবেষক মুশফিকা। আমাদের এই সল্প চেষ্টার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মুখে হাসি ফোটাতে পেরেছি।
মরিয়ম নামের এক পথশিশু বলে, আমার খুব আনন্দ লাগছে। আমাকে কেউ কোনোদিন এভাবে কাছে ডেকে হাতে মেহেদী রাঙিয়ে দেয়নি।
রুহি আক্তার বলে, আমরা গরিব মানুষ। প্রতি বছর ঈদে আমার বন্ধুরা মেহেদী হাতে দেয়। আমার কখনও সুযোগ হয়নি। এক আপু আমাকে আজ হঠাৎ করে মেহেদী লাগিয়ে দিলো। আমার খুব আনন্দ লাগছে।
এনসিটিএফ বামনা উপজেলা সভাপতি ইনসানা রহমান তাজ্জি বলেন, ঈদ সবার জন্য আনন্দের। আমরা চেষ্টা করছি ঈদের আনন্দ যেন গরিব, অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝেও ছড়িয়ে পড়ে। সেজন্য আমাদের এই ক্ষুদ্র আয়োজন।
মেহেদি উৎসবে অংশ নেওয়া সংগঠন এর সাধারণ সম্পাদক শাহ মুহাম্মদ শাফি উদ্দীন বলেন, ঈদে সাধারণত ছোট ভাই-বোনদের হাতে মেহেদি দিয়ে আমরা আনন্দ পাই। তবে এবার সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের হাতে মেহেদি রাঙিয়ে দিতে পেরে আরও অনেক ভালো লাগছে।
আমাদের মতো অন্য শিশুকিশোরদের অনুপ্রেরণা যোগাতে এই কাজের মূল উদ্দেশ্য।
এ কার্যক্রম করার জন্য বামনা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি বলেন, এটি একটি দারুণ উদ্যোগ। এ ধরনের নানা রকম কাজের মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম বেড়ে উঠতে পারে।

ফেসবুকে লাইক দিন