আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ মঙ্গলবার, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে মে, ২০২৪ ইং, ১২ই জিলক্বদ, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

নলছিটির সুবিদপুরে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ।

মশিউর রহমান রাসেল,ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার সুবিদপুর ইউনিয়নের,মাওলানা সোহরাব আলী খান এতিমখানা ও হিফজ মাদ্রাসার শিক্ষার্থীর উপর অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। অত্র মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ জাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে।
হিফজ মাদ্রাসা শিক্ষার্থী ইমাম হোসেনের মা তাহমিনা বেগম জানান,গত ০২ এপ্রিল সন্ধায় সব বাচ্চাদের সাথে তার ছেলেও মসজিদে নামাজের জন্য যায়।এসময় খেলারছলে বাচ্চারা এক মুসল্লির জুতা বাহিরে ফেলে দেয়।পরবর্তীতে নামাজ শেষ হবার আগেই ইমাম হোসেন জুতাটি যথাস্থানে রেখে দিলেও অন্য কেউ ফের একটি জুতা বাহিরে ফেলে দেয়।এরপর মাদ্রাসায় ফিরে অন্য বাচ্চারা তাদের শিক্ষক হাফেজ জাহিদুল ইসলামকে বললে, তিনি পরের দিন ৩ এপ্রিল ইমাম হোসেনের উপর উপুর্যুপরি বেত্রাঘাত করেন এবং পিঠে লাথি মারেন।এতে ইমাম হোসেন মারাত্মক আহত হয় এবং তার মেরুদণ্ড আঘাতপ্রাপ্ত হয়।
এই সংবাদ পেয়ে তাহমিনা বেগম তার ছেলেকে মাদ্রাসা থেকে ফেরত আনতে গেলে পথে মানছুর মেম্বারের ভাই বেলাল তার পথরোধ করে ফের তার ছেলেকে চর মারেন এবং তাকেও লাঞ্চিত করেন। তবে এ বিষয়ে বেল্লাল খান কে মুঠোফোনে কল দিলে তার নম্বরটি সুইচ অফ পাওয়া যায়। আহত ছাত্রের মা তহমিনা বেগম নলছিটি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
সুবিদপুর মাওলানা সোহরাব আলী খানের মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা সোহরাব আলী খানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। নলছিটি থানার ডিউটি অফিসার আমিনুল ইসলাম জানান, হাফেজী মাদ্রাসা ছাত্রকে প্রহারের অভিযোগ এক মহিলা দিয়ে গেছেন। পরবর্তি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন