আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ বুধবার, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে মে, ২০২৪ ইং, ১৩ই জিলক্বদ, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

রাত পোহালেই ঋতুরাজ বসন্তের আগমন

মশিউর রহমান রাসেল, ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ প্রকৃতিতে শীতের ক্লান্তি লগ্ন, শুরু হয়েছে বসন্তের আগমনী কাউন ডাউন।
শীতের জীর্ণতা সরিয়ে ফুলে ফুলে সাজতে ব্যস্ত প্রকৃতি। গাছে গাছে নতুন পাতা, স্নিগ্ধ সবুজ কচি পাতার ধীর গতিময় বাতাস জানান দিচ্ছে নতুন লগ্নের। ফাল্গুনের আগমনী বার্তায় পলাশ, শিমুল গাছে লেগেছে আগুনের খেলা,উকি দিচ্ছে কলি, মধুর বসন্তের সাজ রব সর্বত্র। পুরো প্রকৃতিতে চলছে বসন্তের আগমনের ধ্বনি ।
শিমুল যদি হইতাম আমি শিমুলের’ই ডালে শোভা পাইতো রূপ আমার ফাগুনেরও কালে’। প্রকৃতিতে ফুটে থাকা শিমুল ফুল নিয়ে এমন কালজয়ী অনেক গান রচিত হয়েছে। শুধু কি গান আর কবিতা? বাংলা সাহিত্যের পাতায়ও স্থান পেয়েছে শিমুলের রক্তরাঙ্গা ফুলের অপরূপ সৌন্দর্য। মাঘের তীব্র শীত পেরিয়ে রাত পেরোলেই প্রকৃতিতে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন ঘটবে। আর সেই আগমনী বার্তা ছড়াচ্ছে শহর আর গ্রামের পথে প্রান্তরে। যেন উদাসী মনে আকাশ পানে চেয়ে ফুটতে শুরু করেছে সদ্য ফোটা শিমুলের দল। রক্তিম মনোলোভা শিমুল ফুলগুলো কয়েক দিনের মাঝেই পূর্ণতা পাবে।বসন্ত আসার আগেই গাছে গাছে সীমিত আকারে শিমুল ফুল ফুটতে শুরু করেছে।
মাঘের শেষ আজকে আর এরই মধ্যে প্রকৃতিতে বইতে শুরু করেছে বসন্তের হাওয়া। ঋতুরাজ বসন্ত তার আগমনী বার্তা নিয়ে প্রকৃতির দরজায় কড়া নাড়ছে।
বসন্তের আগমনী বার্তা পেয়ে শীতের রিক্ততা ভুলিয়ে ফাগুনের আগুনে মানুষের মন আর প্রকৃতিতে লেগেছে পরিবর্তনের ছোঁয়া। বসন্তের রঙ্গ ও রূপে নিজেকে সাজাতে প্রকৃতি এখন মেতে উঠেছে। প্রকৃতি ধারণ করতে শুরু করেছে রূপ লাবণ্যে ভরা মনোহরী ভাব।
ফাল্গুনের আগুনে শীতের তীব্র রুক্ষতা কেটে পাতাঝরা বৃক্ষ গুলির মাথায় দেখা দিয়েছে সবুজ পাতা, কলি ও ফুল। প্রকৃতিতে বসন্তের সাজ-সাজ রব। শহর থেকে গ্রামের প্রতিটি সড়কে যেতে যেতে দেখা যায়, নতুন কুঁড়ি ও ফুলে আবার শিমুল গাছ রঙিন হয়ে উঠতে শুরু করেছে, রাস্তার ধারে শিমুল গাছে প্রকৃতির আদরমাখা স্পর্শ যেন জেগে উঠেছে। শীতের রুক্ষতা কাটিয়ে প্রকৃতি ফিরে পেতে চলছে ফুল, ফল ও সবুজের এক অপরূপ সমারোহ, যা আগমনী বার্তা ছড়াচ্ছে বসন্তের। শিমুলের প্রস্ফুটিত হাসিতে শিমুল বনে যেন লেগেছে লেলিহান লাল রঙ্গের আগুনের ঘনঘটা। নানা প্রজাতির পাখিরা তার মিষ্টি কুহুতানে মাতাল করতে আসা শুরু ঋতুরাজ বসন্ত সবুজ-শ্যামল বাংলায়।
প্রকৃতির নিয়ম অনুযায়ী ঋতু বদলায় তার রূপ, রং আর সৌন্দর্য নিয়ে। আগের প্রকৃতি আর বর্তমান প্রকৃতির মধ্যে অনেক পার্থক্য। প্রকৃতি নিয়ে বয়োজ্যেষ্ঠদের মুখ থেকে শোনা যায় এক ঋতুর আবহাওয়া আরেক ঋতুর ১০ দিন আগেই বিস্তার লাভ করে। তাই তো মাঘ মাস শেষ হতে না হতেই প্রকৃতিতে বইতে শরু করেছে ফাল্গুনের হাওয়া। সেই হাওয়ায় শিমুল গাছে ফুটতে শুরু করেছে ফুল। বসন্তের বার্তা নিয়ে শিমুল গাছের কলি খাওয়ায় মেতে উঠেছে পাখির দল। সেই সাথে আম, লিচু, জাম ও বেল গাছে মুকুলে ভরে উঠছে।
বাংলার প্রতিটি গ্রামে সড়কের দুই ধারের শিমুল গাছগুলি নতুন কুঁড়ি ও লাল ফুলে প্রকৃতি যেন অনাবিল আনন্দ ও নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলা ভূমির মহা উৎসব। ইট-কাঠের এই যান্ত্রিক যুগে বসন্তে প্রকৃতি যেন তার সব সৌন্দর্য উজাড় করে দিবে।
বিশিষ্টজনদের মতে, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ষড়ঋতুর বাংলাদেশে ঋতুর চারিত্রিক পরিবর্তন হচ্ছে। আর এর প্রভাব পড়ছে পরিবেশ ও প্রকৃতিতে। আবহাওয়া গবেষকরা বলছেন, বসন্ত ঋতু আসার আগে শিমুল ফুল ফোঁটার পেছনেও আবহাওয়ার পরিবর্তণের প্রভাব পড়েছে। ফুল দেখলে সবার মন অব্যক্ত এক ভালোলাগায় ভরে যায়। আর শিমুল ফুল তো আবেদনময়ী এক ফুল।
এই বসন্ত বাতাসে ভেসে আসুক আনন্দ, উৎসব, সুখের বার্তা বাংলার প্রতিটি গ্রামে। বসন্তের নতুন কলি ও ফুলের মত সুন্দর হোক পৃথিবীর সকল মানুষের অন্তরে। ঋতু পরিবর্তনের শিক্ষা থেকে পরিবর্তন হোক পৃথিবীর সকল রাজনৈতিক অস্থিরতা এটাই সকলের কাম্য।

ফেসবুকে লাইক দিন