আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ রবিবার, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জুন, ২০২৪ ইং, ৯ই জিলহজ্জ, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

বৃদ্ধে একদিন ফেবুতে- তাকী আহমাদ

ভোলার খবর ডেস্কঃ ২০৫৬ সাল! বয়স প্রাই ৫৩ ছুঁই ছুঁই। আজ হঠাৎ হারানো স্মৃতিগুলোর কথা মনে পড়ল। কীভাবে যে শৈশব, কিশোর,যৌবন চলে গেল টেরও পেলাম না। বয়সের টানে বন্ধু-বান্ধব সব হারালাম। বন্ধুগুলোর অনেকেই নশ্বর পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেন, না ফেরার দেশে। মৃত্যুর ঘন্টা বারবার কড়া নাড়াচ্ছে, না জানি কখন বিধাতার ডাকে সাড়া দিতে হয়। এখন বন্ধুদের অনুপস্থিতিতে নাতনিদের নিয়ে সময় কাটাতে হয়। মনে পড়ে গেল ফেইসবুকের কিছু স্মৃতি! কাল বিলম্ব না করে ছেলের স্মার্ট ফোনটা হাতে নিলাম। কী দূর্ভাগ্য! পাসওয়ার্ডটা এখন আর স্মরণে নেই। কোথায় খোঁজি? মনে পড়ল শৈশবের একটি ডায়েরির কথা। “যা রোজনামচা হিসাবে ব্যবহার করতাম”। খুঁজতে লাগলাম,কোথাও খুঁজে পেলাম না। নজর পড়ল ডায়েরির শেষ পাতায়। একাউন্ট নম্বরটা ঝাপসা ঝাপসা লিখা। এরপর বিদায়……….
তখন সম্ভবত ২০২৮ সাল-এর শেষ দিক, দু যুগ ধরে ফেইসবুক নামক মহাগ্রন্থে আসা হয়নি। ঢুকে পরলাম। সব অচেনা। প্রোফাইলে শৈশবের একটি ছবি। শৈশব আর বর্তমান কোনো মিল নেই। হবেইবা কেন? মানুষ তো পরিবর্তনশীল। বয়সের ধরুন ভালো করে কিছু দেখতে পাচ্ছি না। ঝাপসা ঝাপসা! ম্যাসেন্জার নামক এক মহাজগতে প্রবেশ করলাম। অনেক ম্যাসেজ। প্রিয়োজনদের ম্যাসেজ দেখে মহাখুশি।
এখন আর তাঁরা এ জগতে আসে না, অফলাইন নামক দুনিয়ায় তাদের বিরাজ। হঠাৎ রাজনন্দিনী-এর আইডিতে নজর গেল। প্রফাইলে ক্লিক করলাম। শেষ পোস্ট ছিল ২০৩২-এর শুরুদিকের । তাঁর কুচকুচে কালো কেশগুলো এখন শুভ্রবর্ণ ধারন করেছে। জানি না সে এখন কেমন আছে, কোথায় আছে । হয়তোবা সেও এখন প্রিয়োজনদের মতো চলে গেছে, না ফেরার দেশে। নশ্বর এ পৃথিবীর শাশ্বত চিরন্তন সত্য হল মৃত্যু। জীবন নামের রেলগাড়িটা একদিন হার মানবে মৃত্যুর কাছে। সবাই সাঁড়া দিতে হবে রবের ডাকে। কারণ, যে জম্মেছে সে তো মরবেই। যার শুরু আছে, তার শেষ হবেই। মৃত্যু থেকে কেউ পালাতোন করতে পারবে না । এমনকি জান কবযকারী মালাকুল মউতও না। পৃথিবীর যে প্রান্তে থাকিনা কেন, মৃত্যু ব্যক্তিকে পাকরাও করবেই । অবশেষে বরের তরে অধমের এই ফরিয়াদ, আল্লাহ যেন আমাদের সকলকে সঠিক পথে চলার মতো তৌফিক দেন, এবং মৃত্যুর সময় কালিমা নসিব করুন। আমিন, ইয়া রাব্বাল আলামিন।

ফেসবুকে লাইক দিন