আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ রবিবার, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জুন, ২০২৪ ইং, ৯ই জিলহজ্জ, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

ভোলায় প্রথমবারের মতো কৃষি অফিসের সহায়তায় হারভেস্টারের মাধ্যমে ভুট্টা হারভেস্টিং হচ্ছে।

ভোলার খবর ডেস্ক : ভোলায় এই প্রথম কম্বাইন হারভেস্টারের মাধ্যমে ভুট্টার হারভেস্টিং হচ্ছে। রাজাপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর ব্লকে বাপ্তা ইউনিয়নের সফল চেয়ারম্যান সবুজ বাংলা কৃষি খামারের কর্ণধার খুলনা ও বরিশাল বিভাগের মধ্যে সফল কৃষক হিসাবে সম্মাননা পদক প্রাপ্ত এবং জেলার সেরা কৃষক ইয়ানুর রহমান বিপ্লব মোল্লা ৫ একর জমিতে ভুট্টা আবাদ করেন। এ বিষয়ে ইয়ানুর রহমান বিপ্লব মোল্লার সাথে কথা বললে তিনি জানান, জনসেবার পাশাপাশি গত ২০০৫ সাল থেকে কৃষি কাজ শুরু করি। দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে কৃষি কাজ করে আসছি। প্রতিবছর আমরা ভুট্টা সংগ্রহ করতাম সনাতন পদ্ধতিতে এবার প্রথম ভোলায় কৃষি অফিসের সহায়তায় হারভেস্টারের মাধ্যমে ভুট্টা হারভেস্টিং করছি। এতে আমাদের পরিশ্রমি কম হচ্ছে, ভুট্টা দ্রুত প্রক্রিয়াজাত করতে পারছি এবং খরচও কম হচ্ছে। প্যাসিফিক ৩৩ জাত লালতীর কোঃ থেকে বীজ সংগ্রহ করেছি। কৃষি অধিদপ্তর আমাদের ভুট্টা আবাদে সেচ ব্যবস্থাপনা, সার ব্যবস্থাপনা, বালাই ব্যবস্থাপনা ও নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করেছেন। একর প্রতি আমি ১২০ মন ফলন আশা করছি। তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশে ভুট্টা এবং গম বিদেশ থেকে আমদানী করতে হয় রাষ্ট্রের উপর চাপ সৃষ্টি হয় প্রচুর পরিমান ডলার খরচ করতে হয় এত অর্থ।নৈতিক কাঠামো দুর্বল হয় । তাই আমাদের দেশের কৃষক ভাইরা যদি ভুট্টা চাষে আগ্রহী হন তাহলে তারা ফলন বেশী পাবেন লাভবান হবেন অন্যদিকে রাষ্ট্রর অর্থনৈতিক কাঠামো উন্নত হবে। এ বিষয়ে কৃষি অফিসের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা, ভোলা সদর, জনাব মোঃ বশিরের সাথে কথা বললে তিনি জানান, কৃষি অফিসের মাধ্যমে বর্তমান সরকার ৭০% ভর্তুকী দিয়ে কৃষকদের হারভেস্টার মেশিন দিচ্ছেন। বিগত দিনগুলোতে হারভেস্টার না থাকায় কৃষক তেমন আগ্রহী ছিলনা ভুট্টা চাষে। এবার এই মেশিন আসায় আগামীতে আরো বেশী ভুট্টা চাষাবাদ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সকল কৃষক এই মেশিনের মাধ্যমে ভুট্টাকে হারভেস্টিং করলে কৃষকগণ লাভবান হতে পারবে । তিনি বলেন, এ বছর ভোলাতে ৩৩৫৪ পিইওনিয়র কোং, ৯৮৪ গোল্ড সিদ্দিক সীড কোং, জিডি-৮২২ লালতীর কোং, বালাজি সুপার ষ্টার, জাতের বীজ এবং সার কৃষকদের মাঝে বিতরন করেছি কৃষকদের আগ্রহী করতে প্রদর্শনী গ্রহণ করা রয়েছে।
উল্লেখ্য ভোলা সদর উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়নে ভুট্টার চাষ বৃদ্ধি পেয়েছে। চলতি বছর উপজেলায় ৪২০ হেক্টর জমিতে ভুট্টার আবাদ সম্পন্ন হয়েছে। যার লক্ষমাত্রা ছিল ৩৬০ হেক্টর। এবছর হেক্টর প্রতি প্রতি ১০-১৪ মেট্রিক টন ভুট্টা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা র্নির্ধারণ করা হয়েছে। ভুট্টা চাষে পরিশ্রম কম, লাভজনক ও সরকারি প্রণোদনা প্রদানের ফলে চাষিরা ভুট্টা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছে। চলতি রবি মৌসুমে উপজেলায় ভুট্টার ব্যাপক আবাদ হওয়ায় হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখে।

ফেসবুকে লাইক দিন