আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ শুক্রবার, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জুন, ২০২৪ ইং, ৭ই জিলহজ্জ, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

“মানবতার দেয়াল” (বিবার) উদ্যোগটি ছড়িয়ে পড়ুক দেশজুড়ে।

ভোলার খবর ডেস্ক: “আপনার প্রয়োজনে নিয়ে যান, অমার প্রয়োজনে দিয়ে যান।” এই স্লোগানকে সামনে রেখে দি বেস্ট ইনিসিয়েটিভ অব ভোলা এসোসিয়েশন (বিবা) নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মানবতার দেয়াল ও দেয়ালিকা কার্যক্রম শুরু করেছেন । ভোলার যুগীরঘোল মুক্তিযোদ্ধাদের বদ্ধভুমি সংলগ্ন এলাকায়। তাঁরা একটি দেয়াল নির্ধারণ করছেন। দেয়ালের এক পাশে বিত্তবানেরা তাঁদের অপ্রয়োজনীয় জিনিস রেখে যেতে পারবেন। অন্য পাশ থেকে প্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে যেতে পারবেন সুবিধাবঞ্চিতরা। সংস্থাটির পরিচালক ও ভোলার বিয়ে বাজারের স্বত্বাধিকারী মনিরুল ইসলামের মাধ্যমে এই মহৎ উদ্যোগটি দ্রুত জেলায় ছড়িয়ে পড়ছে এবং কাঙ্খতি সাড়া জাগছে। ইতিমধ্যেই জেলার কিছু বিত্তবান লোকেরা তাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন।
পরিচালক মনিরুল ইসলাম জানান, দেশে হাজার ধরনের সমস্যা আছে। শুধু রাষ্ট্র তথা সরকার সেই সমস্যার সমাধান করবে, এমনটা প্রত্যাশা করা যৌক্তিক নয়।যেকোনো জাতীয় সমস্যা মোকাবিলায় ব্যক্তির অংশগ্রহণ জরুরি। তিনি আরো জানান, দি বেস্ট ইনেসেটিভ অব ভোলা এসোসিয়েশন (বিবা) করোনা কালীন সময়ে ১৭ ই মার্চ তৎকালীন পুলিশ সুপার সরকার মোঃ কায়সারকে প্রধান অতিথি করে সর্বপ্রথম আনুষ্ঠানিকভাবে হাত ধোয়া কর্মসূচি চালুর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটির আত্মপ্রকাশ ঘটে।১৩ এপ্রিল রমজান মাসে ভোলা জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী এবং পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম মানবতার দেয়াল কার্যক্রমটির উদ্বোধন করেন।
ভোলা আলিয়া মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ আলহাজ্ব মাওলনা মোবাশ্বিরুল হক নাঈম বলেন, ব্যক্তি যখন সংগঠিত হয় তখন বড় বড় সমস্যা সহজেই সমাধান করা সম্ভব হয়। এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখতে পারে সমাজের বিত্তবানরা। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ভোলা জেলা রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট সেক্রেটারি জনাব মোঃ আজিজুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন “দশে মিলে করি কাজ হার জিতে নাহি লাজ” এই কথায় বিশ্বাস করলে সমাজের বড় ধরণের সমস্যা ব্যাক্তি পর্যায় সমাধান করা সম্ভব। আমি আমার দপ্তর থেকে সুবিধা বঞ্চিতদের কল্যাণে “বিবাকে” যতটুকু সম্ভব সহায়তা প্রদান করব ইনশাঅল্লাহ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুস, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) বলেন, যেকোনো বড় ধরণের সংকট মোকাবিলায় যদি সংঘবদ্ধ হওয়া যায় তাহলে অনেক বড় ধরণের সমস্যাও সমাধান করা সহজ হয়। তাই ‘মানবতার দেয়াল’ শীর্ষক এই কার্যক্রমের মধ্যে মনির যে ঐকতান শুরু করেছে, সেটি আশাবহ। এই কার্যক্রম শুধু সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সাধারণ পোশাক পৌঁছে দেওয়া নয়, বরং জনগুরুত্বসম্পন্ন আরও অনেক বিষয় এর সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পারে। তারাই ধারাবাহিকতায় মনির পলদ্দিন নামের ক্ষুদ্র চা বিক্রেতাকে ৭ হাজার টাকার মুদি মালামাল এবং নগদ ২ হাজার টাকা দিচ্ছেন এবং কোনরকম মুনাফা বা লাভ ছাড়াই মালামাল বিক্রি করে এই টাকা আবার প্রতিষ্ঠানকে ফেরত দিয়ে আবার প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে মালামাল ক্রয় করতে পারবেন। এটা হতে পারে পরকালে নাজাতের উসিলা। সংগঠনটি প্রতি শুক্রবার ১০-১১ টার মধ্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল বিতরণ করছেন তা অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার। একই সাথে তিনি সমাজরে সকল বিত্তবানেদের এগিয়ে এস উক্ত কাজের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য আহবান জানান এবং “বিবাকে” এই কার্যক্রমের ধারাবহিকতা বজায় রাখার জন্য অনুরোধ করেন। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন “বিবার” সভাপতি জনাব আজিজুল ইসলাম এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দৈনিক ভোলার খবরের প্রকাশক ফখরুল আলম, বাংলাবাজার ফাতেমা খানম কলেজের প্রভাষক, জনাব জাকির হোসেন, ভোলা প্রকাশের সম্পাদক ও প্রকাশক বিজয় বাইনসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

ফেসবুকে লাইক দিন