আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ শুক্রবার, ৬ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৯শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং, ৯ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

মেঘনা নদীতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরায় ৩৯ জেলে আটক!!

এম এ অন্তর হাওলাদারঃ ভোলার তজুমদ্দিনে মেঘনা নদীতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অভয়াশ্রমে মাছ ধরার অপরাধে ৩৯ জেলেসহ ট্রলার ও বেহুন্দিজাল আটক করা হয়েছে। আটককৃত জেলেদেরকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে আর্থিক জরিমানা করা হয়। জাল আগুণে পুড়ে ধ্বংস করা হয়।
মৎস্য অফিস সুত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার ৪এপ্রিল বিকাল ৪টা থেকে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত তজুমদ্দিন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আমির হোসেনের নেতৃত্বে মৎস্য অফিস ও নৌপুলিশ মেঘনায় যৌথ অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় রাত সাড়ে ১০টার দিকে চরজহিরউদ্দিন সংলগ্ন মেঘনায় বেহুন্দিজাল দিয়ে মাছ ধরার সময় ৩৯ জেলে, ২টি ট্রলার ও ৪টি বেহুন্দিজাল আটক করা হয়েছে। ট্রলার মৎস্য অফিসের হেফাজতে রয়েছে। বেহুন্দিজাল শশীগঞ্জ সুইজঘাট এলাকায় আগুণে পুড়ে ধ্বংস করা হয়।
আটক জেলেরা হলেন, মোঃ রায়হান, মোঃ মেহেরাজ, জিল্লুর রহমান, সাকিব, বশুরাম দাস, শরীফ, সাকিব, আলতাফ হোসেন, রাকিব, কবির, মামুন, নয়ন, রুবেল, আব্দুল মন্নান, জুয়েল, নিজামউদ্দিন, রাসেল, মনির, আব্দুল মন্নান, রিফাত, ইসমাইল, জাকির মাঝি, সমীর, রফিক, ইউসুফ, সোহাগ, সোহেল, জোবায়ের, শরীফ, সজিব, নাছির, রাকিব, মজনু, মিরাজ, শরিফুল ইসলাম, রুবেল, সুজন, নাজিম ও মাহিম। আটক প্রত্যেক জেলের বাড়ি লক্ষীপুর জেলার রামগতি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বলে জানা গেছে।
পরে আটককৃতদের মধ্যে ৩২জেলেকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মরিয়ম বেগম ৩ হাজার টাকা করে মোট ৯৬ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানার রায় প্রদান করেন। অপর ৭জন অপ্রাপ্ত বয়সের হওয়া তাদের মুছলেকা রেখে অভিভাবকের নিকট ছেড়ে দেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আমির হোসেন বলেন, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ শিকার করার দায়ে ৩৯ জেলেকে আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৩২জনকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৩ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। অন্য সাতজন অপ্রাপ্ত বয়সের হওয়ায় মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। সামনের দিকে নিষেধাজ্ঞার বাকী সময়ও কঠোরতার সাথে অভিযান পরিচালনা করা হবে।
উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মরিয়ম বেগম বলেন, আগামী দিনগুলিতেও অভিযান চলমান থাকবে।
উল্লেখ্য, ১লা মার্চ থেকে ৩০এপ্রিল দীর্ঘ দুইমাস মেঘনা নদীর ৪টি অভয়াশ্রমে মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। অভয়াশ্রমগুলি হলো চর ইলিশার মদনপুর থেকে চরপিয়াল পর্যন্ত শাহবাজপুর চ্যানেলের ৯০ কিলোমিটার, ভোলার ভেদুরিয়া থেকে পটুয়াখালীর চররুস্তুম পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার, চাঁদপুরের ষাটনল থেকে লক্ষীপুর জেলার চর আলেকজেন্ডার পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার ও শরীয়তপুরের নরিয়া থেকে ভেদরগঞ্জ পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার জলসীমার মধ্যে দুইমাস সব ধরনের মাছ আহরনের উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া সরকার।

ফেসবুকে লাইক দিন