সর্বশেষঃ

ভোলায় প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৭ জনকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার

 

অনলাইন ডেস্ক :

ভোলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৩ রা জুন) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভোলার ২৫টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরীক্ষা চলাকালিন অসদুপায় অবলম্বন করায় বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে ৭জন পরীক্ষার্থীকে আজীবনের জন্য প্রাইমারির সকল পরীক্ষা থেকে বহিষ্কার ও ১০দিন করে জেল প্রদান করা হয়। এর সকলেই পরীক্ষার কেন্দ্রে মোবাইল ফোন ও ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে। এরা হলেন পশ্চিম বাপ্তা আদর্শ স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্র থেকে ওমর ফারুক, মো: সোহাগ, হাবিবুর রহমান, ভোলা সরকারি কলেজ কেন্দ্র থেকে আকলিমা বেগম, ঘুইংগার হাট মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে মো: হাসান, ইলিশা ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে আল মাহামুদ, মনির হাওলাদার। এদের সবার কাছে মোবাইল ফোন ও সাদা কাগজে উত্তর পত্র পাওয়া যায়।এদিকে পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থী নাঈম, যুবায়েরসহ আরো অনেকে জানান, পরীক্ষার প্রশ্ন খুবই ভালো হয়েছে। একেবারে সহজ নয় আবার কঠিনও নয়। বিগত দুই ধাপের মতোই হয়েছে। তবে পরীক্ষা হলে অসঙ্গতি ছিলো অনেক। ঘড়ি ব্যবহার করতে না দেওয়ায়  অনেক  শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার হলে সময় মতো উত্তর দিতে পারেনি বলে জানান। শিক্ষকরা যারা পরীক্ষার কেন্দ্র গার্ড দিয়েছে তারা সঠিক মতো গার্ড দেয়নি। নির্ধারিত সময়ের আগে তারা শিক্ষার্থীর কাছ থিকে খাতা নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেন। তাই সামনের পরীক্ষা গুলোতে যারা পরীক্ষার কেন্দ্র গার্ড দিবে তাদের পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ প্রদান করা কথা বলেন।
ভোলা ইলিশা ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার জাবেদ হোসেন চৌধুরী বলেন, সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী প্রতিটি কেন্দ্রে সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। তবে পরীক্ষার হলে মোবাইল নিয়ে প্রবেশ করায় ইলিশা ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে দুজনসহ সর্বমোট ৭জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে।  তবে ইলিশা ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রর দুজনকে প্রাইমারি পরীক্ষার সকল পরীক্ষা থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।
এছাড়া বাকিদের বহিষ্কার ও ১০দিন করে জেল প্রদান করা হয়েছে। রাষ্ট্রিয় গোয়েন্দ অধিদপ্তর (এনএসআই) ভোলার টিমির গোপন সংবাদের ভিতিতে এদের মোবাইল ফোনসহ পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে আটক করা হয়।
জেলায় ৩ ধাপের ২৪৪টি সহকারী শিক্ষক পদের বিপরীতে ২৫টি কেন্দ্র পরীক্ষায় অংশ নেয় ১৫ হাজার ৬৩৭ জন পরীক্ষার্থী এতে অংশ নেয়ার কথা রয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন