আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে চান? - বিস্তারিত
ঢাকা আজঃ শনিবার, ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং, ৩রা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরী
সর্বশেষঃ

হাসপাতাল পরিদর্শনে মাশরাফি, ৮ চিকিৎসককে শোকজ

অনলাইন ডেস্ক:
সরকারি হাসপাতাল স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে রোগীদের অভিযোগ যেন নিয়মে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু কোন খবর না দিয়েই সে দুর্ভোগ দেখতে গেছেন এমন জনপ্রতিনিধির সংখ্যা হাতে গোনা। শনিবার হঠাৎ হাসপাতালে গিয়ে সবাইকে চমকে দেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।এ সময় চিকিৎসকের অনুপস্থিতি, রোগীদের খাবার না দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ করেন রোগী ও স্বজনেরা। এ ঘটনায় সাংসদ মাশরাফি ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশের পর হাসপাতালের আট চিকিৎসক, দুজন ল্যাব টেকনিশিয়ান ও একজন কুক মশালচিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মো. আসাদ-উজ-জামান।সে ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রোববার দুপুরে আবারো নড়াইল সদর হাসপাতাল পরিদর্শনে যান তিনি। একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্ত ঘুরে দেখেন চিহ্নিত করেন রোগীদের ভোগান্তি, নিম্নমানের খাবার, অপরিচ্ছন্ন বাথরুমসহ বিভিন্ন সমস্যা। এসময় রোগীদের দুর্ভোগ কমাতে ও সেবার মান ভালো করার জন্য চিকিৎসকদের সহযোগিতা চান এই জনপ্রতিনিধি। রোগী ও উপস্থিত লোকজন জানান, কাউকে না জানিয়ে সাংসদ মাশরাফি গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে হাসপাতালে ঢোকেন। তিনি বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখেন। এ সময় বহির্বিভাগের অধিকাংশ চিকিৎসক উপস্থিত ছিলেন না। রোগীরা চিকিৎসকের অপেক্ষায় ছিলেন। শৌচাগারসহ অন্যান্য জায়গা অপরিষ্কার-অপরিচ্ছন্ন দেখতে পান তিনি। চিকিৎসকদের ছুটি নেয়ার ক্ষেত্রে অনিয়ম দেখতে পান। হাসপাতালে প্রায় এক ঘণ্টা অবস্থান করে চলে যান। আধা ঘণ্টা পর আবার তিনি হাসপাতালে আসেন। তখনো সব চিকিৎসককে পাননি। এ নিয়ে অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি।হাসপাতাল পরিদর্শন গিয়ে নির্দিষ্ট সময়ে কর্মস্থলে না আসা ও দায়িত্ব অবহেলার কারণে ৮ জনকে শোকজ করেন মাশরাফী। এছাড়া, চুক্তিভিত্তিক কর্মরত একজনকে অব্যাহতি দেন।নপরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ককে সাংসদ মাশরাফি বলেন, ‘অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার অভিযোগ পেয়ে আসছি। এত দিন হাতে প্রমাণ ছিল না। আজ নিজে দেখতে পেলাম। এখন আপনি এসব ব্যাপারে আপনার করণীয় যা তা–ই করেন। আপনি সিদ্ধান্ত দেন। হাসপাতালে দূরদূরান্ত থেকে গরিব রোগী আসেন। তাদের খাবার দেওয়া হয় না। চিকিৎসকেরা ঠিকমতো অফিস করেন না। এটা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।’এসময়, দুঃখ প্রকাশ করে ভবিষ্যতে ভাল সেবা দেয়ার আশ্বাস দেন চিকিৎসকরা।হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মো. আসাদ-উজ-জামান বলেন, সাংসদ মাশরাফি হাসপাতালে আসেন সকাল পৌনে নয়টার দিকে। আট চিকিৎসক ও দুজন ল্যাব টেকনিশিয়ান হাসপাতালে উপস্থিত হন সোয়া নয়টার দিকে। দেরিতে উপস্থিত হওয়ায় তাদের কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন