সাতক্ষীরায় সরকারি জমি উদ্ধার।।

সেলিম খান, সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি ঃ

সাতক্ষীরার কলারোয়ার জালালাবাদ ইউনিয়নের বাটরা গ্রামে পানি যাতায়াতের সরকারি জমি দখল করায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টির হচ্ছে এমন অভিযোগ উঠলে যৌথ অভিযান পরিচালনা করেন কলারোয়া উপজেলা সহকারি কমিশনার(ভূমি) মোঃ আল-আমিন হোসেন ও কলারোয়া সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা রবীন্দ্রনাথ মন্ডল।
সোমবার (৭ আগস্ট) বিকেল সাড়ে তিনটায় সরজমিন তদন্ত শেষে অভিযোগের সত্যতা পেলে কলারোয়া সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো:আল-আমিন হোসেন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি জমি উদ্ধার করে পানি যাতায়াতের ব্যবস্থা করেন।

গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, বাটরা গ্রামের মাঠের পানি নিষ্কাশনের একমাত্র পথ হিসেবে কাজ করত এই নালাটি। কিন্তু বিগত কিছু বছর আগে এখানে ঘের কাটা হয় তারপর থেকে কম বৃষ্টি দেখা দিলে আস্তে আস্তে নালা বন্ধ করে বিভিন্ন রকম গাছ লাগাতে শুরু করে পার্শ্ববর্তী ঘের মালিকরা। একটি ঘেরের মালিক তার ঘেরের ভিতরে সরকারি জমি নিয়ে গিয়েছে। এবছর বৃষ্টির হার বেশি দেখা দিলে মাঠে অনেক জমি ফাঁকা পড়ে থাকতে দেখা গিয়েছে পানির কারণে তারা ধান চাষ করতে পারছে না বলে এলাকাবাসী জানান।

এ বিষয়ে কলারোয়া সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো:আল-আমিন হোসেন সাংবাদিকদেরকে বলেন জালালাবাদ ইউনিয়নে একটি স্থানে খালে পানি যাতায়াতের নালা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা এখানে আজকে অভিযান পরিচালনা করেছি। আমরা এখানকার ঘের মালিকদের সাথে কথা বলেছি তাদেরকে আবারও যে নালাটি ছিলো সেটি দু দিনের ভিতরে কেটে দিতে হবে এবং পানি যাতায়াতের পথ কোনরকম বন্ধ করা যাবে না আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

কলারোয়া উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা রবীন্দ্রনাথ মন্ডল সাংবাদিকদেরকে জানান, জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে এমন অভিযানের অভিযোগের ভিত্তিতে আজ আমরা এখানে একটি অভিযান পরিচালনা করেছি, কলারোয়া সহকারী কমিশনারে(ভূমি) সহযোগিতায় কৃষকদের সেই জমি পুনরুদ্ধার করতে পেরেছি আগামীতে আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।
অভিযান চলাকালে সেখানে উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান কালাম, কলারোয়া থানার এএসআই মেজবাউদ্দিন,পুলিশ সদস্য আশরাফুল,তপু প্রমুখ।

ফেসবুকে লাইক দিন