‘ব্যালন ডি’অরে মেসির প্রতিদ্বন্দ্বী কেউ নেই’

ক্রিড়া প্রতিবেদক :

ফল জানা যাবে আগামী মাসের শেষের দিকে। তবে এবারের ব্যালন ডি’অর কার হাতে উঠবে, সে আলোচনা থেমে নেই। পাঠকদের উপর মার্কার চালানো জরিপে ‘পরিষ্কার ফেভারিট’ লিওনেল মেসি।

সম্প্রতি এই জরিপ চালায় স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিকটি। সেখানে মেসি পেয়েছেন ৩৪ শতাংশ ভোট। তার পরই আছেন রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি ফরোয়ার্ড করিম বেনজেমা; তিনি পেয়েছেন ২৬ শতাংশ ভোট। ১১ শতাংশ ভোট পেয়েছেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ তারকা রবের্ত লেভানদোভস্কি। এ জরিপে মেসির ধারেকাছে নেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো।

কেবল পাঠকরাই নয়, ব্যালন ডি’অরের লড়াইয়ে যারা আছেন তাদের অনেকেও একবাক্যে এগিয়ে রাখছেন মেসিকে। সম্প্রতি আর্জেন্টিনার পত্রিকা ওলের সঙ্গে আলাপচারিতায় ঘনিষ্ঠ বন্ধু মেসিকে অপ্রতিদ্বন্দ্বী তকমা লাগিয়ে দেন লুইস সুয়ারেস।

“ব্যালন ডি’অরের লড়াইয়ে একজন কেবল এক বছরে কী করেছে, সেটা দেখা উচিত নয়। খেলোয়াড় হিসেবে সে কেমন, সেটাও দেখা উচিত। আমার বিশ্বাস, মেসির কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই।”

২০২১ সালটা দারুণ কাটছে মেসির। বার্সেলোনা, পিএসজি ও আর্জেন্টিনার হয়ে এরই মধ্যে ৪৮ ম্যাচে ৪০ গোল করেছেন তিনি; ১৪ গোলে রেখেছেন অবদান।

বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দেওয়ার আগে কাতালুনিয়ার দলটির হয়ে মেসি জেতেন কোপা দেল রে। আর্জেন্টিনাকে এনে দেন কোপা আমেরিকার শিরোপা।

৩৪ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড এখন আলো ছড়াচ্ছেন পিএসজির জার্সিতে। প্রিয় বার্সেলোনা ছেড়ে নতুন ঠিকানায় গেলেও সর্বোচ্চ পর্যায়ে ধরে রেখেছেন পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা।

কেবল সুয়ারেস নয়, পিএসজি কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনোও এবারের ব্যালন ডি’অর দেখতে চান মেসির হাতে।

“মেসিই ব্যালন ডি’অর পাবে, এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।”

“আমি যদি মেসিকে কোচিং নাও করাতাম…তারপরও বলতাম মেসিই পাবে। এটা আমি হৃদয় থেকে বলছি।”

প্রথমবারের মতো ব্যালন ডি’অরে মেসির সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জর্জিনিয়ো। অনেকের মতে, চেলসির চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ইতালির ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এই মিডফিল্ডারই বর্ষসেরা ফুটবলারের যোগ্য দাবিদার।

সম্প্রতি ‘টুইস’-এ স্বদেশি সাবেক ফুটবলার আন্তোনিও কাসানোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জর্জিনিয়ো নিজেই বলেন, আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডই এ মুকুটের যোগ্য।

“যদি মেসির বদলে আমি ব্যালন ডি’অর জিতি, তাহলে সেটা নিয়ে অনেক কথা হবে। সবসময় সে-ই এটা জিতবে।”

দারুণ এই ব্যক্তিগত অর্জন নিয়ে মেসি অবশ্য বরাবরেই মতোই নিজের আবেগ চেপে রেখেছেন। কিছুদিন আগে ফ্রেঞ্চ ফুটবলের সঙ্গে আলাপচারিতায় এই তারকা ফরোয়ার্ড সব হিসাব তুলে দেন সময়ের হাতে।

“আমি নিজেকে ফেভারিট মনে করি না এবং ফলাফলের আগ পর্যন্ত এটা নিয়ে কথা বলতে কখনই ভালো লাগে না আমার। যদি এটা জিতি, তাহলে দারুণ হবে।”

ছয় ব্যালন ডি’অরের সবশেষটি মেসি জিতেছিলেন ২০১৯ সালে। এবারের ব্যালন ডি’অর কার হাতে উঠছে, সেটা জানা যাবে ২৯ নভেম্বর।

ফেসবুকে লাইক দিন